দেবহাটা প্রতিনিধি: সাতক্ষীরায় একটি ইটভাটা শ্রমিকের রহস্যজনক মৃত্য হয়েছে। মৃত শ্রমিকের সহকর্মীরা বলছেন, তিনি আত্মহত্যা করেছেন। অন্যদিকে তার স্বজনরা বলছেন, তাকে ঢাকার ধামরাইতে ইটভাটায় নিয়ে হত্যা করা হয়েছে। সোমবার সকালে দেবহাটা উপজেলার পারুলিয়া গুচ্ছগ্রামের বাড়ি থেকে নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। নিহত শ্রমিকের নাম ফিরোজ ঢালি(৩২)। তিনি দেবহাটা উপজেলার পারুলিয়া গুচ্ছগ্রামের সাইদুর ঢালির ছেলে।

দেবহাটা থানার ওসি বিপ্লব কুমার সাহা জানান, দেবহাটা এলাকার শ্রমিক সরদার বাবলু সরদার ফিরোজ ঢালিসহ বেশ কয়েকজন শ্রমিককে সম্প্রতি চুক্তিভিত্তিক ঢাকার ধামরাই ইটভাটায় শ্রম দিতে যান। রোববার সকালে ফিরোজ ঢালি সেখানে মারা যান। এ সময় শ্রমিক সরদার বাবলু তার মরদেহ নিয়ে আসেন দেবহাটা উপজেলার পারুলিয়া গুচ্ছগ্রামের বাড়িতে। খবর পেয়ে পুলিশ সোমবার সকালে বাড়ি থেকে মরদেহটি নিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। তবে সহকর্মীদের বরাত দিয়ে ওসি আরও জানান, ফিরোজ ঢালি ধামরাইতে অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তিনি কীটনাশক খান। এতেই মারা যান ফিরোজ। ওসি আরও জানান, ময়নাতদন্ত ছাড়া এ ঘটনা হত্যা না আত্মহত্যা তা নিশ্চিত করে বলা অসম্ভব। তবে এ ঘটনায় শ্রমিক বাবলু সরদারকে আটক করা হয়েছে।